অনুবাদ কবিতাকবিতা

এই তো সেই ঘর

এই তো সেই ঘর, সেই সমুদ্র, সেই উড্ডীন পতাকা,
দীঘল দেয়াল ধরে অনেক হেঁটেও খুঁজে পাইনি যার
সিংহ-দুয়ার, শুনতে পাইনি আমাদের
না-থাকার শূন্যতাকে — যেন ও মৃত।

অবশেষে বাড়িটি তার নৈঃশব্দের পাল্লা খুলে দেয়,
আমরা ভেতরে আসি, এলোমেলো পরিত্যক্ত সামগ্রীর
ওপর পা, মেঝেতে মৃত ইঁদুর, শূন্যময় প্রস্থানের
বিদায়ী চিহ্ন, নলীতে জলের ব্যর্থ কান্না জমে আছে।

বাড়িটা কেঁদেছে দিন-রাত, মাকড়সার জালে জুবুথুবু,
আধখোলা, মর্মাহত, পোড় খাওয়া,
কালশিটে লেগে আছে চোখে ।

আমরা এসেছি জেনে জীবন ফিরে পেয়েছে সে, নিমেষে,
অথচ, আমাদের স্থায়ীত্বের পরও হতচকিত বাড়িটা
পারেনা ঠাওরাতে, কী ভাবে হাসতে হয়, কী ভাবে ফোটাতে হয় ফুল।

-অনুবাদ: আনন্দময়ী মজুমদার
২০১৪/০৮/০৪

—- LXXV, from `100 Love Sonnets’, by Pablo Neruda

কবির আরো কবিতা পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button